কবে শুরু হবে জয়ার দ্বিতীয় ছবির কাজ?

আলোকিত সকাল ডেস্ক

প্রযোজনার প্রথম ছবি ‘দেবী’র মুক্তির পর গত ডিসেম্বরেই দ্বিতীয় ছবি নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছিলেন সময়ের আলোচিত অভিনেত্রী জয়া আহসান। তার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘সি’ সিনেমা থেকে ‘ফুড়ুত’ শিরোনামের ছবির প্রি-প্রোডাকশনের কাজ শুরু হওয়ার পাশাপাশি অভিনয়শিল্পী, গল্প, পরিচালক, কলাকুশলীসহ অনেক কিছুই চূড়ান্ত বলে জানিয়েছিলেন তিনি। বলেছিলেন, জাতীয় নির্বাচনের পর সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ছবিটির বিস্তারিত জানাবেন এবং গ্রীষ্মকালে ছবিটির শুটিং শুরু করবেন। কিন্তু গ্রীষ্ম শেষে বর্ষার বিদায় ঘণ্টা বাজলেও ‘ফুড়ুত’ নির্মাণের কোনো লক্ষণই দেখা মিলছে না। বরং জয়া আহসানের নানামুখী ব্যস্ততায় ক্রমশ অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে ‘ফুড়ুত’র নির্মাণ। কবে শুরু হচ্ছে ‘ফুড়ুত’র কাজ? জয়া আহসান নিজেও এই প্রশ্নের জবাব দিতে পারলেন না। তবে ব্যস্ততা একটু কমলেই ছবিটির কাজ শুরু করবেন বলে জানালেন তিনি।

বর্তমানে অভিনয় নিয়ে তুমুল ব্যস্ত সময় পার করছেন জয়া আহসান। এই কলকাতা, এই ঢাকা- এভাবেই কাটছে জয়ার দিন। বাংলাদেশি সরকারি অনুদানের ‘অলাতচক্র’ ছবির কাজ শেষ হতে না হতেই আবার নতুন ছবির খবর দিলেন এই অভিনেত্রী। জানালেন, আরও তিনটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। তিনটি ছবিই কলকাতার। সম্প্রতি কলকাতা থেকে ফিরে এসে বিষয়টি নিশ্চিত করে জয়া আহসান বলেন, ‘ঈদের পর ছবিগুলোর শুটিং শুরু হবে। আপাতত এর বেশি কিছু বলা যাবে না। নির্মাতা ও প্রযোজকদের পক্ষ থেকে নিষেধাজ্ঞার কারণে সব বিষয় গোপন রাখতে হচ্ছে। তিনটা ছবির কাজই হবে কলকাতায়। তবে খুব শিগগিরই বড় আয়োজনের মাধ্যমে ছবিগুলোর বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।’

জয়ার প্রযোজনার প্রথম ছবিটি কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের ‘দেবী’ উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হয়েছিল। তবে দ্বিতীয় ছবি ‘ফুড়ুত’ হবে মৌলিক গল্পের। এ ছবিতে জয়া নিজে অভিনয় নাও করতে পারেন। ছবির গল্পের সঙ্গে মানানসই কাউকে পেলে তিনি থাকবেন না বলেও ইঙ্গিত দেন। নতুন ছবির বিষয়বস্তু নিয়ে জয়া বলেছিলেন, ‘এই ছবিটি কমেডি, ড্রামা, নস্টালজিয়া, ড্রিমস কাম ট্রু- এক কথায় এটি একটি আধুনিক রূপকথা। কিন্তু মানুষগুলো আসল। এর বেশি আর কিছু এখনই বলতে চাই না।’ তবে বিশ্বস্ত এক সূত্রে জানা গেছে, জয়া ছবির প্রি-প্রোডাকশনের কাজ শেষ হয়নি। জয়া আহসান মনে করছেন, একটি ছবির শুটিং শুরুর আগে প্রি-প্রোডাকশন অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই সেদিকটায় বেশি মনোযোগী তিনি। এ প্রসঙ্গে জয়ার বক্তব্য, ‘বিদেশে কাজ করে দেখেছি, প্রি-প্রোডাকশনকে তারা অনেক গুরুত্ব দেন। একটি ছবির শুটিং শুরুর আগে প্রি-প্রোডাকশনেই অনেক বেশি সময় প্রয়োজন। আপাতত কাজটা আগে মন দিয়ে করতে চাই।’

আস/এসআইসু

Facebook Comments