কবির প্রস্থান- ফারজানা করিম

অলিন্দ নিলয়ে যখন তোলপাড়

করে রক্ত।

সেই রক্ত মস্তিষ্কে সংকেত পাঠায়
আর ঠিক আমার আঙ্গুলগুলো ঐ
সংকেত কে শব্দে রূপান্তরিত করে,
আমি এতদিন এভাবেই
কবিতা লিখে এসেছি
বেশ অনেকদিন হল আমি কবিতা লিখতে পারছিনা ।
কবিতা কেন শব্দের কোন খেলাই
খেলতে পারছিনা।
লিখতে পারছিনা আর মৃত্যুর কথা
কত রকমের মৃত্যু!

আমি আর লিখতে পারছিনা।
আমার হৃৎপিণ্ডে রক্ত চলাচলে
অসুবিধে হচ্ছে,
আমার মস্তিষ্কে ওরা কোন সংকেত পাঠাচ্ছেনা
আমার হাত অথবা আঙুল আর কথা বলছেনা।

আমি আমার কবিতায় সৃষ্টির কথা বলতে চাই
ধ্বংসের নয়
আমি আমার কবিতায় শান্তির কথা বলতে চাই
যুদ্ধের নয়
আমি আমার কবিতায় পুণ্যের কথা বলতে চাই
পাপের নয়।
সবাই বলে একজন কবিকে নাকি সকল অন্যায়ের
বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হয়
কলম দিয়ে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে বের করে আনতে হয় প্রেম
সেই কলম দিয়েই যুদ্ধ ।
আমি এখন আর বুঝতে পারিনা
সবার আগে আমি কবি নাকি মানুষ!!!
হে ঈশ্বর,
আমায় তবে অন্ধ এবং বধির করে দাও
আমি আর কোন পাপের ইতিহাস শুনতে চাইনা
আমি আর কোন যন্ত্রণার মৃত্যু দেখতে চাইনা
আমি আবার ভালোবাসার গল্প লিখতে চাই
আমি শুধু পরম যত্নে প্রেমের কবিতা লিখতে চাই।

Facebook Comments Box