এবার শিশুপার্ক বন্ধ॥ ঈদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত শিশুরা

আলোকিত সকাল ডেস্ক

অনলাইন রিপোর্টার ॥ চার দশক পর এই প্রথমবারের মতো ঈদের দিন শাহবাগের ঐতিহাসিক শিশুপার্কের বিভিন্ন রাইডের চাকা ঘুরবে না। সকাল থেকে শিশুপার্কে প্রবেশের টিকিট কিনতে হাজারো মানুষের দীর্ঘ লাইন দেখা যাবে না। নানা বয়সী দুরন্ত শিশুদের হাসিমুখে ছুটে বেড়ানো কিংবা রাইডে চড়ে আনন্দমুখর হতে দেখা যাবে না।

মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের অধীনে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা স্তম্ভ নির্মাণ (তৃতীয় পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় শাহবাগ শিশুপার্কের উন্নয়ন ও আধুনিকায়নের কাজ শুরু হওয়ায় বর্তমানে পার্কের সব কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি)। এ কারণে চলতি বছরের প্রথম দিন থেকে অর্থাৎ পাঁচমাসেরও বেশি সময় ধরে শিশুপার্ক বন্ধ। ফলে শিশুপার্কে ঈদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত হবে শিশুরা।

আজ মঙ্গলবার দুপুর একটা। দূর থেকে জোহর নামাজের আজান ভেসে আসছিল। শাহবাগ শিশু পার্কের ভেতর থেকে বাইরে গেটের সামনে দাঁড়িয়ে ডিএসসিসির (শিশুপার্কের) গোটা দশেক কর্মচারী। তাদেরই একজন দুদু মিয়া।

হঠাৎ করে শিশুপার্কের ভেতরে তাকালে মনে হবে যুদ্ধবিধ্বস্ত কোনো স্থান। রাইডগুলো ভেঙে দুমড়েমুচড়ে পড়ে আছে। বিশাল বিশাল গর্ত খনন করা হয়েছে শিশুপার্ক জুড়ে।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, প্রায় ৪০ বছরের চাকরি জীবনে এই প্রথম শিশুপার্কে কর্মবিহীন থাকতে হবে। এ কথা বলতে বলতেই পুরনো স্মৃতি হাতড়ে বললেন, গত বছর এক ভদ্রলোক তার সাত-আট বছর বয়সী ছেলেকে নিয়ে একটি রাইডে চড়ে (আমাদের দেশটা স্বপ্নপুরি সাথে মোদের ফুলপরি) বলছিলেন, আমি ছোটবেলায় শিশুপার্কে এই ঘোড়াতে বসে এ গানটি শুনেছি। স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় ও বিদেশে পড়াশোনা শেষ করে বিয়ে করে সন্তানের বাবা হয়েছি। আজ তোমাকে এই ঘোড়ায় চড়ালাম। এমন স্মৃতি একজনেরই নয়, এ শিশুপার্কের বিভিন্ন রাইডের সঙ্গে এমন লাখো মানুষের স্মৃতি বিজড়িত।

দুদু মিয়া বলেন, গত বছরের ঈদের কয়েকদিন আগে থেকেই অর্ধশতাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারীর সবাই ভীষণ ব্যবস্থায় সময় কাটাতো। ঈদকে সামনে রেখে সব রাইডসহ শিশুপার্কের চুনকাম করা ও দায়িত্ব বণ্টন নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটতো। কিন্তু এবার তা নেই। তারা এখন নিছক পাহারাদার হিসেবে ডিউটি করেন।

দুপুরে সরেজমিন দেখা গেছে, শিশু পার্কের চারদিক টিনের বেড়া দিয়ে আটকে দেয়া হয়েছে। ভেতরে একটি নোটিশে লেখা রয়েছে, ‘ঢাকাস্থ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা স্তম্ভ নির্মাণ (তৃতীয় পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় শাহবাগ শিশুপার্কের উন্নয়ন ও আধুনিকায়ন কাজ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন থাকায় অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা এড়ানোর লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় শিশুপার্ক সর্বসাধারণের জন্য বন্ধ থাকবে। পার্কের উন্নয়ন ও আধুনিকায়নের কাজের সমাপ্তির পর শিশুপার্কটি সর্বসাধারণের জন্য খোলার বিষয়ে পুনরায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।’

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box