এটা টি-টোয়েন্টি নয়, গেইলদের উদ্দেশে লয়েড

আলোকিত সকাল ডেস্ক

১৯৭৯ সালে কিংবদন্তি অধিনায়ক ক্লাইভ লয়েডের হাত ধরে জোড়া শিরোপা জিতেছিল উইন্ডিজ দল। তবে এরপরে আর শিরোপার স্বাদ উপভোগ করতে পারেনি ক্যারিবীয়রা। এবারের বিশ্বকাপের আগে ব্যাটিং বোলিং দুই জায়গাতেই দারুণ ফর্মে আছে উইন্ডিজরা। নিজেদের প্রথম ম্যাচেই নিজেদের জাত চিনিয়েছে উইন্ডিজ। পাকিস্তানকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে তারা। তবে, দ্বিতীয় ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ১৫ রানে হেরেছে তারা।

উইন্ডিজের বিপক্ষে শুরুতেই চার উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়েছিল অস্ট্রেলিয়া। তবে ট্রেন্ট ব্রিজে মিচেল স্টার্কের পাঁচ উইকেট শিকারের আগে ৬০ বলে নাথান কালটার-নাইলের ৯২ রানে জয় পেয়ে যায় অজিরা।

লয়েডের বিশ্বস টুর্নামেন্টে ভালো করার অস্ত্র উইন্ডিজের আছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে তাদেরকে আরও বেশি দক্ষতা প্রমাণের আহ্বান জানান ৭৪ বছর বয়সী সাবেক এই কিংবদন্তি।

তিনি বলেন, ‘উইন্ডিজকে অবশ্যই স্মার্ট ক্রিকেট খেলা শুরু করতে হবে। কেননা তাদের দক্ষিণ আফ্রিকা ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দু’টি ম্যাচ আছে। তারা যদি নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে পারে তবে আমি বুঝব যে তারা সেমিফাইনাল খেলতে চায়। যারা ম্যাচ জেতাতে পারে বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে যখন পিচ ভালো থাকবে, বাউন্স এড়াতে ও মুভমেন্ট এড়াতে এমন খেলোয়াড় তাদের দলে থাকতে হবে।

জয়ের অবস্থানে থাকার পরও ওউইন্ডিজের ব্যাটিং ধ্বস দেখে হতাশ লয়েড। দলের বিরুদ্ধে অনেক বেশি ভাব লেশহীন খেলার অভিযোগ করে লয়েড বলেন, ট্রেন্ট ব্রিজের মত পিচে প্রায় সকলে আউট হওয়ার কোনও কারণ ছিল না। কিন্তু তারা না বুঝে শট খেলেছে এবং উইকেট বিলিয়ে দিতে শুরু করেছে। খেলোয়াড়দের বুঝতে হবে এটা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট নয়। ৩০-৪০ রানকে বড় স্কোরে পরিণত করতে হবে এবং বুঝতে হবে এ ধরণের দলগুলোর ভান্ডারে বিশ্ব মানের বোলার মজুদ আছে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box