ঈদে সাত পর্বের দুই ধারাবাহিকে মিলি

আলোকিত সকাল ডেস্ক

নন্দিত অভিনেত্রী ফারহানা মিলিকে এবারের ঈদে দুটি সাতপর্বের ঈদ ধারাবাহিক নাটকে দেখা যাবে। দুটি ধারাবাহিকেরই কাজ তিনি এরইমধ্যে শেষ করেছেন। একটি কায়সার আহমেদের নির্দেশনায় ‘প্রেমের দুষ্টুচক্র’ এবং অন্যটি অসীম গোমেজের ‘রং চা’।

‘প্রেমের দুষ্টুচক্র’ ধারাবাহিকটির শুটিং হয়েছে রাজধানীর উত্তরাসহ আশেপাশের এলাকায়। ‘রং চা’র শুটিং হয়েছে সিলেটে যেতে যেতে পথে এবং সিলেটে। ফারহানা মিলি বলেন, ‘যেহেতু ঈদের নাটক তাই দুটি নাটকই কমেডি ঘরানার গল্প নিয়ে নির্মিত।

দর্শকের বিনোদনের কথা ভাবনায় রেখেই কায়সার ভাই এবং অসীম দা দুটি ধারাবাহিক বেশ যত্ন নিয়েই নির্মাণের চেষ্টা করেছেন। আমরা যারা অভিনয় করেছি তারাও দুটি নাটকে অভিনয় বেশ উপভোগ করেছি।

আশা করা যায় দর্শক দুটি নাটকই বেশ আগ্রহ নিয়েই উপভোগ করবেন।’ ফারহানা মিলি আরো জানান, ‘রং চা’ ঈদ ধারাবাহিকটিতে তাকে নতুন এক চরিত্রে দর্শক দেখতে পাবেন একেবারেই নাটকের শেষপ্রান্তে। অভিনেতা এফএস নাঈম ও মিলিকে শেষপ্রান্তে দর্শক নতুন করে আবিষ্কার করবেন। এদিকে আগামী ঈদের জন্য বেশ কয়েকটি খণ্ড নাটকেও কাজ করবেন ফারহানা মিলি।

এদিকে ফারহানা মিলি অভিনীত সঞ্জিত সরকার পরিচালিত ‘চিটিং মাস্টার’ ধারাবাহিকটি নিয়মিত আরটিভিতে এবং তোফায়েল সরকার পরিচালিত ‘গুডডু বুড়া’ নিয়মিত দুরন্ত টিভিতে প্রচার হচ্ছে।

ফারহানা মিলি বলেন,‘ দুরন্ত টিভি মূলত বাচ্চাদের চ্যানেল। কিন্তু এই চ্যানেলও যে বাচ্চারা’সহ বাচ্চার বাবা মায়েরাও দেখেন তা এই নাটকে অভিনয় না করা হলে বুঝতে পারতাম না। গুডডু বুড়া নাটকে অভিনয়ের জন্য আমি বেশ সাড়া পাচ্ছি প্রতিনিয়ত।’

দুরন্ত টিভিতে প্রতি শুক্র ও শনিবার সকাল সাড়ে ৭টা ও রাত সাড়ে ৮টায় প্রচার হয় ২৬ পর্বের এই ধারাবাহিক নাটকটি। আগামী ঈদে এনটিভিতে মিলি অভিনীত ‘রং চা’ এবং এটিএন বাংলায় ‘প্রেমের দুষ্টুচক্র’ প্রচার হবে।

ফারহানা মিলি অভিনীত একমাত্র সিনেমা গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘মনপুরা’। এরপর তিনি আর নতুন কোনো সিনেমায় অভিনয় করেননি। একটি সিনেমাতে অভিনয় করেই তিনি যে জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন তার রেশ ধরেই এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

এখনো প্রতিনিয়ত মনপুরা’তে অভিনয়ের জন্য সাড়া পান তিনি। মনপুরা’ মুক্তির সময়কালে তিনি বাংলালিংকের একটি বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেও বেশ আলোচনায় আসেন। উল্লেখ্য ‘রং চা’ রচনা করেছেন এজাজ মুন্না এবং ‘প্রেমের দুষ্টুচক্র’ রচনা করেছেন শফিকুর রহমান সান্ত্বনু।

আস/এসআইসু

Facebook Comments