ইরানকে ভুগতে হবে : ট্রাম্প

আলোকিত সকাল ডেস্ক

ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় অব্যাহত রয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হুঁশিয়ার করে গত সোমবার বলেছেন, ইরান যদি কিছু করে তাহলে তাদের ভয়াবহ পরিণতি ভোগ করতে হবে। উপসাগরীয় অঞ্চলে ইরান যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থের ওপর আঘাত হানতে পারে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার এমন ইঙ্গিতের প্রেক্ষাপটে এ হুমকি দেন ট্রাম্প। তবে ওই দিনই আরো পরের দিকে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে বলেন, ইরান একটি মহান দেশ তাদের ভয় দেখানো সম্ভব না।

এদিকে সৌদি আরব জানিয়েছে, গতকাল মঙ্গলবার সকালের দিকে দেশটির দুটি পাম্প স্টেশনে হামলা চালানো হয়েছে। লোহিত সাগরসংলগ্ন তেলসমৃদ্ধ পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশে ড্রোনের মাধ্যমে ওই হামলা চালানো হয়েছে। পারস্য উপসাগরে সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) উপকূলে সৌদির দুটি তেলবাহী ট্যাংকারসহ চারটি বাণিজ্যিক জাহাজে নাশকতামূলক হামলার পর এ হামলার ঘটনা ঘটল।

ইরান-সমর্থিত ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা বলেছে, সৌদি আরবের গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু স্থান লক্ষ্য করে তারা ড্রোন হামলা চালিয়েছে। সৌদি আরবের জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল-ফালিহ বলেন, দুই পাইপলাইনে ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে। ফলে সেখান থেকে অপরিশোধিত তেল সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। বিশ্বে তেল সরবরাহ বন্ধ করতে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। এ হামলাকে তিনি ‘সন্ত্রাসী কার্যক্রম’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। উপসাগরীয় অঞ্চলজুড়ে ইরানকে নিয়ে যে সংকট চলছে তা মূলত যুক্তরাষ্ট্রের সৃষ্টি।

গত বছর অনেকটা আকস্মিকভাবেই ইরানের পরমাণু চুক্তি থেকে বের হয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন ট্রাম্প। এর পর বছরের শেষ নাগাদ একের পর এক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন দেশটির ওপর। পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে গত সপ্তাহে ইরান ঘোষণা দেয় তারা ২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত ওই চুক্তি কয়েক শর্ত পালন করা থেকে বিরত থাকবে। এর পরই পরিস্থিতি চরম অবস্থা ধারণ করে। ওই অঞ্চলে কয়েকটি রণতরী পাঠায় যুক্তরাষ্ট্র। একই সঙ্গে দুই পক্ষের মধ্যে বাগ্যুদ্ধ শুরু হয়।

এরই একপর্যায়ে গত সোমবার ট্রাম্প সাংবাদিকদের বলেন, ‘ইরান সম্পর্কে আমি কয়েকটি তথ্য পেয়েছি। তারা যদি কিছু ঘটায় তাহলে তা হবে চরম ভুল। সে ক্ষেত্রে চরম ভোগান্তি আছে তাদের কপালে।’ যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ, ইরান মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন স্বার্থে আঘাত হানার পরিকল্পনা করছে।

এদিকে গতকাল ইরানের প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেছেন, ‘ইরানকে ভয় দেখানো যাবে না। আল্লাহ চাইলে এই কঠিন সময় মাথা উঁচু করে পার করব আমরা।’ রমজান মাস উপলক্ষে সোমবার রাতে সুন্নি ধর্মীয় নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এসব মন্তব্য করেন রুহানি। সংযুক্ত আরব আমিরাতের বন্দরে দুটি সৌদি তেলের ট্যাংকার দুর্ঘটনাবশত হামলার শিকার হওয়ার পর এ আলোচনায় বসেন তিনি। ইরান এ ঘটনাকে ভয়াবহ হিসেবে অভিহিত করে।

রাশিয়া সফরে পম্পেও

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভের সঙ্গে আলোচনার জন্য গতকাল মঙ্গলবার রাশিয়ার অবকাশযাপন নগরী সোচিতে পৌঁছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। তারা ইরান, ভেনিজুয়েলাসহ পারস্পরিক সম্পর্কোন্নয়ন নিয়ে আলোচনা করবেন।

আস/এসআইসু

Facebook Comments