ইফতারের খেজুরে বিষ মিশিয়ে স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে জিনিস লুট ও হত্যা

সুজন পাল নোয়াখালী সদর

দুর্বৃত্তের খেজুর খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়া, নোয়াখালীর স্বর্ণ ব্যবসায়ী কার্তিক ভৌমিক (৫৫) মারা গেছেন। শুক্রবার ভোরে নোয়াখালীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

দুর্বৃত্তরা তাকে অচেতন করে নগদ পাঁচ লাখ টাকা ও এক লাখ টাকার স্বর্ণ লুট করার পর ওই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কার্তিক ভৌমিক নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বামনি বাজারের রাজেশ স্বর্ণ শিল্পালয়ের মালিক ও বামনী নরসিং দেবালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ছিলেন।

স্বজনরা আলোকিত সকালকে জানান, কার্তিক ভৌমিক ফেনীতে ব্যবসায়িক কাজ শেষে পাঁচ লাখ টাকা ও লাখ টাকার স্বর্ণ নিয়ে সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় শহর থেকে মহিপাল পৌঁছেন। এরপর ফেনী-নোয়াখালী সড়কের মাহিপাল সিএনজি টারমিনালে গিয়ে অন্য ৩ যাত্রীর সঙ্গে বামনি বাজারের উদ্দেশে যাত্রা করেন।

সিএনজি জায়লস্কর এলাকায় পৌঁছার পর ইফতারের সময় হলে যাত্রীরা গাড়ি থামিয়ে ইফতার শেষ করেন। এ সময় এক যাত্রী তাকে ইফতারের খেজুর খেতে দেন। তা খাওয়ার পর অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। সহযাত্রীরা তার কাছে থাকা পাঁচ লাখ টাকা ও স্বর্ণ লুটে নেয়। সেখান থেকে দাগনভূঞার দুধমুখা সড়কে গিয়ে তাকে অন্য সিএনজিতে তুলে দিয়ে কোম্পানীগঞ্জ পাঠায়।

কার্তিক ভৌমিককে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা সদরে রেখে পালিয়ে যায় সে সিএনজি চালক। স্থানীয় লোকজন মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে তার বাড়িতে খবর দেন। পরিবারের সদস্যরা রাতেই তাকে নোয়াখালী একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করেন।

আস/এসআইসু

Facebook Comments