আমাকে ওষুধ খাইয়ে এজেন্সির ম্যানেজার ধর্ষণ করে

আলোকিত সকাল ডেস্ক

বিশ্বজুড়ে সেক্স ট্রাফিকিং দিনে দিনে বেড়েই চলেছে। ইন্টারন্যাশনাল লেবার অর্গানাইজেশনের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর যৌনতার জন্য পাচার হয়ে যাওয়ার ঘটনায় প্রায় পাঁচ মিলিয়ন অভিযোগ জমা পড়েছিল।

এই ঘটনার শিকার হয়েছিলেন বিখ্যাত এক মডেল এইরিকা ক্রেহমেরও। মডেলিং করতে গিয়ে তিনিও পাচার হয়ে গিয়েছিলেন। ২০ বছর বয়সী ক্রেহমের নিউইয়র্ক থেকে পাচার হয়েছিলেন।

ক্রেহমেরের ভাষায়, ‘একটি এজেন্সি নিজেদের ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি বলে পরিচয় দিয়েছিল। একটি দু কামরার ঘরে প্রায় ২১ জন মিলে থাকতাম আমরা। আমরা কোথায় যাচ্ছি তা জানিয়ে যেতে হতো। ম্যানেজমেন্ট কোম্পানিকে টাকা দেওয়ার জন্য খুচরো কাজ করতে শুরু করি।’

একটি নাইট ক্লাবে কাজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে গিয়ে ক্রেহমের বলেন, ‘আমার জন্য মডেলিং করাটা ভয়াবহ হয়ে গিয়েছিল। আমাকে ড্রাগ খাইয়ে এজেন্সির এক ম্যানেজার ধর্ষণ করে। ক্লাবের পেছনের দিকে একটি রেস্টরুমে এই ঘটনা ঘটানো হয়। পালিয়ে যাওয়ার পর রাস্তা থেকে আবার আমাকে একজন তুলে নিয়ে যায়। ফের ড্রাগ দেওয়া হয়। পরের দিন সকালে নিজেকে বিছানায় বাঁধা অবস্থায় পাই।’

এরপর বহু দিন এভাবে চলার পর অবশেষে একদিন পালাতে সক্ষম হয়েছিলেন এই মডেল।

আস/এসআইসু

Facebook Comments