আজ ঈদ

আলোকিত সকাল ডেস্ক

আজ পবিত্র ঈদুল ফিতর। যথাযথভাবে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ-উৎসবের মধ্য দিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন উপলক্ষে সেজেছে পুরো দেশ। মুসলিম সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় দুই ধর্মীয় উৎসবের একটি ঈদুল ফিতর। একমাস সিয়াম সাধনার পর ঈদের জামাতে শরিক হওয়ার মধ্যদিয়ে উৎসবে মাতবেন দেশের মুসলিম সম্প্রদায়সহ অসাম্প্রদায়িকতার আদর্শে উজ্জীবিত বাংলাদেশের সর্বস্তরের মানুষ। এরইমধ্যে স্বজনদের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে ব্যস্ততম ঢাকা শহর ছেড়ে গ্রামে পাড়ি জমিয়েছেন লাখ লাখ মানুষ।

দিনের শুরুতেই পবিত্র ঈদের নামাজ আদায় উপলক্ষে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানসহ দেশের সকল ঈদগাহ ও মসজিদগুলোতে নেয়া হয়েছে সর্বাত্মক প্রস্তুতি। সেই সাথে দেশের মানুষ যাতে নিরাপদে ও সুন্দরভাবে ঈদ উদযাপন করতে পারে তা নিশ্চিত করতে নেয়া হয়েছে কয়েক স্তরের বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

গতকাল মঙ্গলবার (৪ জুন) সন্ধ্যায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহর সভাপতিত্বে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মুকাররম মসজিদের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক শুরু হয়। দীর্ঘ বৈঠকের পর রাত ৮টা ৫২ মিনিটের দিকে বাংলাদেশের কোথাও চাঁদ দেখা না যাওয়ায় বুধবারের (৫ জুন) পরিবর্তে আগামী বৃহস্পতিবার (৬ জুন) ঈদ উদযাপনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

তবে রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টা নাগাদ লালমনিরহাট, বুড়িমারি ও কুড়িগ্রামসহ দেশের আরও কয়েকটি স্থানে চাঁদ দেখা গেছে মর্মে জেলাপ্রশাসকদের পাঠানো তথ্যের ভিত্তিতে এক জরুরি বৈঠকে বসে চাঁদ দেখা কমিটি। বৈঠকে চাঁদ দেখা প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্যের গ্রহণযোগ্যতা যাচাইয়ের পর তা নিশ্চিত হলে, রাত আনুমানিক ১১টা ১০ মিনিটে এক সংশোধিত ঘোষণা পড়ে শোনান ধর্ম প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, বিভিন্ন জেলার জেলাপ্রশাসকসহ শতাধিক ব্যক্তি চাঁদ দেখতে পেয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। সেই তথ্য পেয়ে আলেম-ওলামাদের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে চাঁদ দেখা কমিটি পূর্বের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ৫ই জুন, বুধবার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপনের সিদ্ধান্ত ধার্য করা হল।

ঈদ উপলক্ষে দৈনিক পত্রিকাগুলো ইতিমধ্যে প্রকাশ করেছে বিশেষ ক্রোড়পত্র। ঈদের আনন্দ বাড়িয়ে দিতে বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেল ও এফএম রেডিওর ঈদের বিশেষ অনুষ্ঠানমালাও থাকছে।

আজ বুধবার ঈদ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত দলীয় নেতা-কর্মী এবং বিচারক ও কূটনীতিকসহ সমাজের সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

বার্তা সংস্থা বাসসের খবরে বলা হয়েছে, রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এক বাণীতে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশবাসীসহ বিশ্ববাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘ঈদ সবার মধ্যে গড়ে তোলে সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি ও ঐক্যের বন্ধন। ঈদুল ফিতরের শিক্ষা সবার মধ্যে ছড়িয়ে পড়ুক, গড়ে উঠুক সমৃদ্ধ বাংলাদেশ- এ প্রত্যাশা করি।’

পৃথক এক বাণীতে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসী ও বিশ্বের সকল মুসলমানদের প্রতি আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ব্যক্তি, পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রীয় জীবনে আত্মশুদ্ধি, সংযম, সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির মেলবন্ধন পরিব্যাপ্তি লাভ করুক- এটাই হোক ঈদ উৎসবের ঐকান্তিক কামনা। হাসি-খুশি ও ঈদের অনাবিল আনন্দে প্রতিটি মানুষের জীবন পূর্ণতায় ভরে উঠুক।

উল্লেখ্য, ঈদের দিন বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা আগাম পূর্বভাসে জানিয়েছিল দেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর। ধারণা করা হচ্ছে, রাতের আকাশ মেঘাচ্চন্ন থাকাতেই চাঁদ দেখা নিয়ে এই বিব্রতি সৃষ্টি হয়। তবে ঈদের আনন্দে সকল বিব্রতি আর বিভ্রান্তি ভুলে উদযাপনের আনন্দে মেতে উঠবে পুরোদেশ, এমনটাই প্রত্যাশা সর্বস্তরের মানুষের।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box