আগামীতে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সড়ক হবে ফোরলেন

সুজন পাল সদর প্রতিনিধি

নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে অত্যন্ত উৎসবমুখর পরিবেশে সোমবার নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও বিশ্ববিদ্যালয় দিবস ২০১৯ উদযাপন করা হয়েছে। এই উপলক্ষে সকাল ১০টায় ক্যাম্পাসে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। পরে হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিস অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় । উপাচার্য প্রফেসর ড. মো: দিদার-উল-আলম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সদর-সুবর্ণচর -০৪ আসনের সংসদ সদস্য ও নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী।

এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো: দিদার-উল-আলম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাকাল হতে কাজ করেছেন যেসকল উপাচার্যবৃন্দ সকলের অবদানসহ অদ্যাবধি নোবিপ্রবির নানা অগ্রগতির তথ্য তুলে ধরে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। সভা সঞ্চালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর মোঃ মমিনুল হক। প্রধান অতিথি একরামুল করিম চৌধুরী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় শেখ হাসিনা সরকারের অবদান তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘এ বিশ্ববিদ্যালয় সৃষ্টিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে, তিনি না হলে নোয়াখালীতে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা হতো না। তাই আমরা কোনো ভাবেই আমাদের সৃষ্টিকে অস্বীকার করতে পারিনা’।

তিনি আরো বলেন, আগামীতে এ বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন সড়ক হবে ফোরলেন, এখানকার ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ রেলপথে যোগাযোগ করতে পারবে। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্যেশে বলেন তোমরা হবে আগামীতে দেশ গড়ার কারিগর।তোমাদের প্রজ্ঞা, মেধা ও সততা দিয়ে আগামী দিনের বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ করবে বিশ্ববাসির কাছে। আলোচনা সভায় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন নোকিপ্রবি সাবেক উপাচার্য প্রফেসর এ কে এম সাঈদুল হক চৌধুরী, সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আবুল হোসেন, পুলিশ সুপার মো: আলমগীর হোসেন, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফারুক উদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. আবু ইউছুফ, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড.গাজী মো. মহসিন, অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মো. মোখলেস-উজ-জামান, সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান এবং শিক্ষকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মো. ওয়ালিউর রহমান আকন্দ।
অনুষ্ঠানে নোবিপ্রবি বিভিন্ন অনুষদের ডিন, ইনস্টিটিউটের পরিচালকবৃন্দ, সকল বিভাগের চেয়ারম্যানবৃন্দ, প্রভোস্টবৃন্দ, প্রক্টর, শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ, অফিসার্স এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ ও স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের নেতৃবৃন্দ, ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আস/এসআইসু

Facebook Comments