আওয়ামী লীগের সবচেয়ে বড় শক্তি মানুষের প্রতি দায়িত্ববোধ

আলোকিত সকাল ডেস্ক

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ জনগণের জন্য কাজ করে। কাজেই জনগণের অধিকার যারা কেড়ে নেয় তাদের প্রথম দৃষ্টি থাকে আওয়ামী লীগের ওপর। যে যখন ক্ষমতায় এসেছে, সবার আগে আওয়ামী লীগের ওপর আঘাত হেনেছে। তিনি আরও বলেছেন, আওয়ামী লীগের সবচেয়ে বড় শক্তি দেশের মানুষের প্রতি দায়িত্ববোধ। দায়িত্ববোধ রয়েছে বলেই বার বার আঘাত আসা সত্যেও এই দলটি টিকে আছে। বঞ্চনা থেকে দেশের মানুষকে মুক্তি দেয়ার জন্য আওয়ামী লীগ কাজ করেছে।

আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দলের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সোমবার (২৪ জুন) বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ওই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগের ওপর আঘাত শুধু পাকিস্তান আমলে ছিল না, স্বাধীনতা পরও দলের ওপর আঘাত এসেছে। স্বাধীনতার পর ’৭৫-এ জাতির পিতার হত্যা থেকে শুরু করে যে অত্যাচার-নির্যাতন হয়েছে তা ভাষায় বর্ণনা করা যায় না। আওয়ামী লীগের ইতিহাস যদি দেখি, অনেক নেতাকর্মীর আত্মত্যাগ রয়েছে। এ ছাড়া ভাঙা-গড়ার খেলা তো আছেই। কিন্তু আওয়ামী লীগ এমন একটি রাজনৈতিক দল যতবারই এই দল ষড়যন্ত্র করে ভেঙেছে, দল তত উজ্জ্বল হয়েছে।

আওয়ামী লীগের ওপর অতীতে নির্যাতন প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, যে যখন ক্ষমতায় এসেছে, সবার আগে আওয়ামী লীগের ওপর আঘাত হেনেছে। বেশি দূরে যেতে হবে না, ২০০৭ সালে যখন তত্ত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমতায় এলো, ক্ষমতায় তো তখন ছিল বিএনপি। সাধারণত আমরা দেখি যখন এমন মার্শাল ল’ আসে, ইমার্জেন্সি হয়, যারা ক্ষমতায় ছিল তাদের দিকেই প্রথমে আঘাত আসার কথা। কিন্তু সবার আগে আঘাত এলো আওয়ামী লীগের ওপর। আমাকে প্রথমে দেশে আসতে দেবে না, আমি যখন জোর করে এলাম, তখন আমাকে আগে গ্রেফতার করা হলো। কারণ আওয়ামী লীগ জনগণের জন্য কাজ করে। কাজেই জনগণের অধিকার যারা কেড়ে নেয়, একটা দৃষ্টি থাকে আওয়ামী লীগের ওপর। আর আওয়ামী লীগকে যত ধ্বংস করার চেষ্টা করা হয়েছে, এই দলটা ততই শক্তিশালী হয়েছে।

তিনি বলেন, বিএনপির দুঃশাসনে মানুষ অতিষ্ট ছিল বলেই ২০০৮ সালে তারা ক্ষমতা হারিয়েছিল। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশের উন্নতি হয়, এ কথা প্রমাণিত সত্য।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box